অটল পেনশন যোজনা সুবিধা কি, লিস্ট, ডিটেলস। Atal Pension Yojana in Bengali

Updated on May 5th, 2024 ||

অটল পেনশন যোজনাটি (APY) ৬০ বছর বয়স ঊর্ধ্ব ভারতের নাগরিকদের সামাজিক নিরাপত্তা প্রদানের জন্য ২০১৫ সালে ভারত সরকার চালু করে। এই স্কিমটি পেনশন ফান্ড রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (PFRDA) দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। 

এটি হোল জাতীয় পেনশন স্কিমের একটি সম্প্রসারণ। আগে ‘স্বাবলম্বন পেনশন যোজনা’ নামে একটি পেনশন যোজনা ছিল কিন্তু সেটি সাধারণ জনগণের দ্বারা খুব কমই গৃহীত হয়েছিল এবং সেটিকে প্রতিস্থাপন করে এই অটল পেনশন যোজনা।

Table of Contents

অটল পেনশন যোজনার উদ্দেশ্য

অটল পেনশন যোজনার প্রাথমিক উদ্দেশ্য হল যে কোনও ভারতীয় নাগরিককে তাদের বৃদ্ধ বয়সে হঠাৎ অসুস্থতা, দুর্ঘটনা বা দীর্ঘস্থায়ী রোগ নিয়ে যাতে উদ্বিগ্ন হতে না হয় তাদের সেই নিরাপত্তা প্রদান করা।

এই যোজনা প্রধানত অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মী যেমন কৃষি কাজের সাথে যুক্ত শ্রমিক, চুক্তিবদ্ধ বা ক্ষুদ্র শিল্পের শ্রমিক অথবা বেসরকারী খাতে কর্মরত লোকেরা, যারা কর-দাতা নয় বা অন্য কোন সামাজিক নিরাপত্তা প্রকল্পেরও অংশ নন্‌ তাদের মধ্যে বাধ্যতামূলক সঞ্চয়ের অভ্যাস গড়ে তোলে, যা অবসর গ্রহণের পর পেনশনের মতই প্রতি মাসে নিশ্চিত অর্থ প্রদান করবে। 

অটল পেনশন যোজনা ডিটেলস

যোজনার নামঅটল পেনশন যোজনা
শুরুর সময়২০১৫ সাল
কর্তৃপক্ষপেনশন ফান্ড রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (PFRDA)
লাভার্থীদেশের অসংগঠিত ক্ষেত্রের নাগরিকগণ
উদ্দেশ্য৬০ বছর বয়সের পরে পেনশন প্রদান
নমিনি সুবিধাআছে
পেনশনের পরিমাণ₹১০০০ থেকে ₹৫০০০ পর্যন্ত
প্রিমিয়ামের পরিমাণ₹২১০ থেকে ₹১৪৫৪ পর্যন্ত
ন্যূনতম বিনিয়োগের সময়২০ বছর
ন্যূনতম বিনিয়োগের বয়স১৮ বছর
সর্বাধিক বিনিয়োগের বয়স৪০ বছর
আবেদন প্রক্রিয়াঅফলাইন
সরকারী ওয়েবসাইটhttps://www.npscra.nsdl.co.in/scheme-details.php

এই যোজনা ন্যূনতম বিনিয়োগের মাধ্যমে ভারতের নাগরিকদের পেনশনের নিরাপত্তা প্রদান করে থাকে। এমনকি আমানতকারীর মৃত্যুর পর তাঁর স্বামী বা পত্নী এই পেনশন দাবি করতে পারেন। এই পেনশনের পরিমান কত হবে তা আমানতকারীর জমার ওপর নির্ভর করবে।

এবার, এই যোজনার বিশেষ বিবরণ গুলি দেখে নেওয়া যাক- 

  • এই পেনশন যোজনায় বিনিয়োগ করে আপনি প্রতি মাসে ১,০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫,০০০ টাকা পর্যন্ত একটি নির্দিষ্ট পেনশন পেতে পারেন৷

  • আমানতকারী ৬০ বছর বয়সে পেনশন পেতে শুরু করবেন।

  • অটল পেনশন যোজনায় বিনিয়োগের জন্য বয়স সীমা হোল ১৮ এবং ৪০ বছর পর্যন্ত।

  • আপনাকে সর্বনিম্ন ২০ বছর বিনিয়োগ করতে হবে।
atal-pension-yojana-in-bengali

এই যোজনার অন্যান্য বৈশিষ্ট্যগুলি জানতে নিচে বিস্তারিত পড়ুন-

জমার পরিমান হ্রাস/ বৃদ্ধি করাঃ 

অটল পেনশন যোজনায় আপনি ৬০ বছর বয়সের পরে পেনশন পাওয়ার যোগ্য। পেনশন হিসাবে আপনি যে পরিমাণ অর্থ পাবেন তা আপনার অবদানের উপর নির্ভর করে। তবে সরকার আপনাকে এই সুবিধে দিয়েছে যে আপনি অর্থ জমানোর পরিমান বছরে ১ বার আপনার প্রয়োজন মত হ্রাস বা বৃদ্ধি করতে পারবেন। 

জমানোর সময় নির্ধারণ করাঃ

এই যোজনায় আপনি অর্থ কি রূপে জমা করতে চান তা নির্ধারণ করতে পারেন। আপনি প্রতি মাসে, প্রতি ৩ মাসে বা প্রতি ৬ মাসে অর্থ জমা করতে পারবেন। 

স্বয়ংক্রিয় ডেবিটঃ

অটল পেনশন যোজনার প্রাথমিক সুবিধাগুলির মধ্যে একটি হল স্বয়ংক্রিয় ডেবিটের সুবিধা৷ আমানতকারীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট তার পেনশন অ্যাকাউন্টের সাথে যুক্ত থাকলে মাসিক অবদান সরাসরি ডেবিট হয়ে যাবে। তবে এই সুবিধের জন্য আমানতকারির অ্যাকাউন্টে যেন পর্যাপ্ত অর্থ থাকে অন্যথায় জরিমানা ধার্য হবে।  

জরিমানার শর্তাবলীঃ

যদি সুবিধাভোগী অবদানের অর্থ প্রদানে বিলম্ব করেন, তাহলে নিম্নলিখিত জরিমানা ধার্য করা হবে।

প্রতি মাসে ₹১০০ পর্যন্ত অবদানের ক্ষেত্রে₹১
প্রতি মাসে ₹১০১ থেকে ₹৫০০ পর্যন্ত অবদানের ক্ষেত্রে₹২
প্রতি মাসে ₹৫০১ থেকে ₹১০০০ পর্যন্ত অবদানের ক্ষেত্রে₹৫
₹১০০১ এর উপরে অবদানের ক্ষেত্রে₹১০

সুবিধাভোগী যদি ক্রমাগত ৬ মাস অর্থ প্রদান না করেন তবে সেই ক্ষেত্রে অ্যাকাউন্টটি ডিফল্ট করা হবে এবং যদি এক টানা ১২ মাস ধরে ডিফল্ট থাকে তাহলে সেই অ্যাকাউন্টটি নিষ্ক্রিয় করা হবে এবং সুদের সাথে জমাকৃত অর্থ সুবিধাভোগীকে ফেরত দেওয়া হবে।

কর ছাড়ঃ

অটল পেনশন যোজনার অবদানগুলি আয়কর আইন ১৯৬১ এর ধারা 80CCD এর অধীনে কর ছাড়ের যোগ্য। এছাড়াও, ধারা 80CCD (1) অনুসারে সর্বাধিক ছাড় হল ব্যক্তির মোট আয়ের ১০% যা ₹১,৫০,০০০ এর সীমা পর্যন্ত এবং উপরন্তু ধারা 80CCD (1B) এর অধীনে ₹৫০,০০০ এর একটি অতিরিক্ত ছাড় পাওয়া যায়। এছাড়া অটল পেনশন যোজনার পরিপক্কতার পরিমাণও কর থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যাহার নীতিঃ

অটল পেনশন যোজনায় সুবিধাভোগী ৬০ বছর বয়স অতিক্রম করলে মাসিক পেনশন পাওয়ার যোগ্য হবেন। যদি কোন কারণে গ্রাহক মারা যান, তাহলে গ্রাহকের পত্নীকে বা পতিকে পেনশনের পরিমাণ প্রদান করা হবে। তবে তিনি পেনশনের টাকার বদলে মোট অবদানের টাকা ও অর্জিত সুদ নিয়ে পেনশন যোজনা প্রত্যাহার করতে পারেন। 

যদি স্বামী-স্ত্রী উভয়েই মারা যান, তবে এমন পরিস্থিতিতে মনোনীত ব্যক্তিকে পেনশন তহবিল সর্বনিম্ন ₹১,৭০,০০০ থেকে সর্বাধিক ₹৮,৫০,০০০ দেওয়া হবে।

এই যোজনায় ৬০ বছর বয়সের আগে প্রত্যাহার সাধারন ভাবে অনুমোদিত নয়। তবে সুবিধাভোগীর মৃত্যু বা টার্মিনাল অসুস্থতা অর্থাৎ কোনো মৃত্যু শয্যার রোগ হলে গ্রাহক এই পেনশন যোজনা থেকে প্রস্থান করতে পারেন। সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র সুবিধাভোগীর অবদান ও অর্জিত সুদের টাকা পাবেন এবং কোন রকম সরকারী অবদান থেকে তিনি বঞ্চিত থাকবেন। 

আরও পড়ুনঃ ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেম বা NPS

অটল পেনশন যোজনা যোগ্যতা

অটল পেনশন যোজনা প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে এবং পেনশন পেতে আপনাকে  নিম্নলিখিত প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করতে হবে –

  • সুবিধেভোগীকে একজন ভারতীয় নাগরিক হতে হবে।

  • বয়সসীমা ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে।

  • ন্যূনতম ২০ বছরের জন্য স্কিমে অবদান রাখতে হবে।

  • আমানতকারীর আধারের সাথে লিঙ্কযুক্ত একটি বৈধ সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

  • একটি সক্রিয় মোবাইল নম্বর থাকতে হবে।

  • আমানতকারী যেন আয়কর প্রদানের যোগ্য না হন।

  • আমানতকারী অন্য কোন সামাজিক কল্যাণ প্রকল্পের সুবিধাভোগী হতে পারবেন না।

অটল পেনশন যোজনা লিস্ট

অটল পেনশন যোজনায় আমানতকারীর বয়স ও পেনশনের মূল্য অনুযায়ী বিনিয়োগের পরিমাণ কত হবে তা নীচের সারণীতে উল্লেখ করা হলঃ-

বয়স (বছর)অবদানের মোট বছরপ্রয়োজনীয় মাসিক অবদানের পরিমাণ
মাসিক পেনশন ₹১০০০মাসিক পেনশন ₹২০০০মাসিক পেনশন ₹৩০০০মাসিক পেনশন ₹৪০০০মাসিক পেনশন ₹৫০০০
১৮৪২৪২৮৪১২৬১৬৮২১০
১৯৪১৪৬৯২১৩৮১৮৩২২৮
২০৪০৫০১০০১৫০১৯৮২৪৮
২১৩৯৫৪১০৮১৬২২১৫২৬৯
২২৩৮৫৯১১৭১৭৭২৩৪২৯২
২৩৩৭৬৪১২৭১৯২২৫৪৩১৮
২৪৩৬৭০১৩৯২০৮২৭৭৩৪৬
২৫৩৫৭৬১৫১২২৬৩০১৩৭৬
২৬৩৪৮২১৬৪২৪৬৩২৭৪০৯
২৭৩৩৯০১৭৮২৬৮৩৫৬৪৪৬
২৮৩২৯৭১৯৪২৯২৩৮৮৪৮৫
২৯৩১১০৬২১২৩১৮৪২৩৫২৯
৩০৩০১১৬২৩১৩৪৭৪৬২৫৭৭
৩১২৯১২৬২৫২৩৭৯৫০৪৬৩০
৩২২৮১৩৮২৭৬৪১৪৫৫১৬৮৯
৩৩২৭১৫১৩০২৪৫৩৬০২৭৫২
৩৪২৬১৬৫৩৩০৪৯৫৬৫৯৮২৪
৩৫২৫১৮১৩৬২৫৪৩৭২২৯০২
৩৬২৪১৯৮৩৯৬৫৯৪৭৯২৯৯০
৩৭২৩২১৮৪৩৬৬৫৪৮৭০১০৮৭
৩৮২২২৪০৪৮০৭২০৯৫৭১১৯৬
৩৯২১২৬৪৫২৮৭৯২১০৫৪১৩১৮
৪০২০২৯১৫৮২৮৭৩১১৬৪১৪৫৪

অটল পেনশন যোজনা সুবিধা কি

APY থেকে আপনি নিম্নলিখিত সুবিধেগুলি পাবেনঃ-

পেনশনের নিরাপত্তাঃ

অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীগণ এই যোজনার মাধ্যমে ৬০ বছর বয়সের পর পেনশনের সুবিধে ভোগ করতে পারবেন। এই স্কিমের অধীনে ন্যূনতম ₹১০০০ থেকে সর্বাধিক ₹৫০০০ পেনশন পাওয়া যায় এবং বৃদ্ধ বয়সে ওষুধের মতো মৌলিক প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করতে সহায়তা করে।

নমিনী সুবিধাঃ

অটল পেনশন যোজনায় একজন সুবিধাভোগীর মৃত্যুর ক্ষেত্রে তার পত্নী বা স্বামী পেনশনের সুবিধা পাওয়ার অধিকারী হন। সেক্ষেত্রে তারা পুরো কর্পাস একবারে নিয়ে তাদের অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিতে পারেন বা মূল সুবিধাভোগীর মতো একই পেনশনের পরিমাণ বেছে নিতে পারে। এই যোজনায় সুবিধাভোগী একজনকে নমিনী করে যেতে পারেন এবং স্বামী/স্ত্রী উভয়ের মৃত্যুর ক্ষেত্রে সেই মনোনীত ব্যক্তি সম্পূর্ণ কর্পাস পরিমাণ পাওয়ার অধিকারী হবেন। সেক্ষেত্রে তিনি সর্বাধিক ₹৮.৫ লক্ষ পর্যন্ত কর্পাস পেতে পারেন।

সরকার সমর্থিত প্রকল্পঃ

অটল পেনশন যোজনাটি ভারত সরকারের পেনশন ফান্ড রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (PFRDA) দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। সুতরাং, সরকার তাদের পেনশনের আশ্বাস দিলে সেক্ষেত্রে ক্ষতির কোনো সম্ভবনা থাকে না।

কর ছাড়ের সুবিধেঃ

অটল পেনশন যোজনার আমানতকারী ধারা 80CCD (1) এর অধীনে ₹১.৫ লক্ষ পর্যন্ত এবং ধারা 80CCD (1B) এর অধীনে ₹৫০,০০০ পর্যন্ত কর ছাড়ের সুবিধা পেতে পারেন। এছাড়া অটল পেনশন যোজনার পরিপক্কতার পরিমাণও কর থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বীমা যোজনা (PMJJBY)

অটল পেনশন যোজনা আবেদন কিভাবে করবেন

আপনি ভারতের যে কোন ব্যাঙ্কেই অটল পেনশন যোজনার পেনশন অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন।অটল পেনশন যোজনায় আবেদনের জন্য নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুনঃ

  • আপনার যে ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট আছে সেই ব্যাঙ্কের নিকটতম শাখায় যান।

  • সেখানে অটল পেনশন যোজনার জন্য একটি আবেদনপত্র নিয়ে প্রয়োজনীয় বিবরণ সহ যথাযথভাবে তা পূরণ করুন।

  • এবার পূরণকৃত ফর্মের পাশাপাশি গ্রাহককে একটি বৈধ মোবাইল নম্বর এবং আধার কার্ডের ফটোকপি জমা করতে হবে।

  • অটল পেনশন যোজনায় পরিষেবার স্বচ্ছতা রাখার জন্য মোবাইল নম্বর বাধ্যতামূলক করা হয়েছে যেখানে আপনি এসএমএস সতর্কতার মাধ্যমে অবদানের ক্রেডিট, অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স এবং অ্যাকাউন্টের সাথে সম্পর্কিত অন্য যেকোন ধরনের ক্রিয়াকলাপ সম্পর্কে নিয়মিত আপডেট পেতে পারেন।

এছাড়াও, পরবর্তী সময় তথ্য পরিবর্তন করার দরকার হলে খুব সহজেই কোন নির্দিষ্ট বিবরণ যেমন ফোন নম্বর, মনোনীত ব্যক্তির নাম বা ঠিকানা ইত্যাদি আপনি পরিবর্তন করতে পারবেন।

অটল পেনশন যোজনা ফর্ম

  • ফর্মটি ডাউনলোড করার পর সেটির একটি প্রিন্ট করিয়ে তারপর যথাযথ ভাবে সেটিকে পূরণ করতে হবে।

  • পূরণকৃত ফর্মের পাশাপাশি, আধার কার্ডের একটি ফটোকপি ব্যাঙ্কে জমা করতে হবে এবং গ্রাহকের একটি বৈধ মোবাইল নম্বরেরও প্রয়োজন হবে।

  • অটল পেনশন প্রকল্পের ফর্মটির নিচের দিকে  “অটল পেনশন যোজনার জন্য প্রাপ্তি-গ্রাহক নিবন্ধন (APY)” নামে একটি স্বীকৃতি বিভাগ রয়েছে যা আবেদনকারীকে পূরণ করতে হবে না। এটি সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক দ্বারা পূরণ হবে এবং আপনার আবেদন প্রক্রিয়া হয়ে গেলে ব্যাঙ্ক আপনাকে স্বীকৃতির রসিদ ফেরত দেবে।

  • অটল পেনশন যোজনা সুবিধার আবেদনপত্র অনুমোদনের পরে, আপনি ওই মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ্‌ পাবেন।

অটল পেনশন যোজনা বন্ধ

  • আপনার ৬০ বছর বয়স পূর্ণ হওয়ার পর, আপনি  আপনার পেনশনের সম্পূর্ণ বার্ষিকী নিয়ে এই ব্যবস্থা প্রত্যাহার করে বেরিয়ে আসতে পারেন। তবে এজন্য আপনাকে অবশ্যই ব্যাঙ্কে যেতে হবে এবং আপনার পেনশনের জন্য আবেদন করতে হবে৷

  • তবে জরুরী অবস্থা যেমন টার্মিনাল সিকনেস বা মৃত্যুর ক্ষেত্রে ৬০ বছর বয়সের আগেও এই যোজনা বন্ধের আবেদন করা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে আবেদনকারীর পত্নী বা স্বামী পেনশন পাওয়ার অধিকারী হবেন। তখন তিনি পেনশনের যোজনায় থাকতেও পারেন অথবা জমাকৃত অর্থ ও সুদ নিয়ে যোজনা প্রত্যাহার করতে পারেন। 

  • আবেদনকারীর যদি ৬০ বছর বয়সের পর মৃত্যু হয়ে থাকে এবং তখন তাঁর পত্নী বা স্বামী যদি যোজনা বন্ধের আবেদন করেন তবে সেই ক্ষেত্রে তিনি পুরো কর্পাস পরিমাণটাই পাবেন।

এখানে আপনার পেনশনের পরিমাণের উপর ভিত্তি করে কর্পাস পরিমাণের একটি সারণী দেওয়া হলঃ

পেনশনের পরিমাণকর্পাস পরিমাণ
₹১০০০₹১.৭ লক্ষ
₹২০০০₹৩.৪ লক্ষ
₹৩০০০₹৫.১লক্ষ
₹৪০০০₹৬.৮ লক্ষ
₹৫০০০₹৮.৫ লক্ষ

অটল পেনশন যোজনা জরিমানা

সুবিধাভোগী যদি অবদানের অর্থ প্রদানে বিলম্ব করেন, তাহলে নিম্নলিখিত জরিমানা প্রযোজ্য হবেঃ

  • মাসিক ₹১০০ অবদানের ক্ষেত্রে মাসিক জরিমানা হবে ₹১।

  • মাসিক অবদান ₹১০১ থেকে ₹৫০০ ক্ষেত্রে মাসিক জরিমানা হবে ₹২।

  • মাসিক অবদান ₹৫০১ থেকে ₹১০০০ ক্ষেত্রে মাসিক জরিমানা হবে ₹৫।

  • মাসিক অবদান ₹১০০১ এর বেশীর ক্ষেত্রে মাসিক জরিমানা হবে ₹১০।

অটল পেনশন যোজনা নতুন নিয়মাবলী

খুব স্পষ্টতই আমরা জানি যে এই যোজনা প্রধানত অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের জন্যই, যারা অন্য কোন সামাজিক নিরাপত্তা প্রকল্পের সাথে যুক্ত নয় তাদের কথা ভেবে করা হয়েছে। তাই কোন আয়কর দেওয়া আবেদনকারী এই যোজনার সুবিধে গ্রহণ করলে যোজনার উদ্দেশ্য কখনও সফল হতে পারে না।

তাই কেন্দ্রের আসা নতুন বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে – “১লা অক্টোবর ২০২২ থেকে প্রদত্ত যে, যে কোনো নাগরিক যিনি একজন আয়করদাতা বা হয়েছেন, তারা APY-এ যোগদানের যোগ্য হবেন না।”

অটল পেনশন যোজনা সম্পর্কিত প্রশ্ন (FAQ)

অটল পেনশন যোজনা সুবিধা কি

এই যোজনায় কমপক্ষে ২০ বছরের জন্য ন্যূনতম আমানত জমা করলে আপনি ৬০ বছরের পর আজীবন পেনশন পাওয়ার অধিকারী হবেন। এছাড়া সুবিধাভোগীর মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী বা স্বামী একই পেনশন পাবেন। তাছাড়া স্বামী ও স্ত্রী উভয়ের মৃত্যুর পর তাঁর নমিনী সর্বাধিক ₹৮.৫ লক্ষ পর্যন্ত কর্পাস পাবেন। 

অটল পেনশন যোজনা যোগ্যতা

অটল পেনশন যোজনার আবেদনকারী একজন ভারতীয় নাগরিক হবেন যার বয়সসীমা ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে। তিনি যেন আয়কর প্রদানকারী না হন এবং তাঁর একটি সক্রিয় মোবাইল নম্বর ও আধারের সাথে লিঙ্কযুক্ত একটি বৈধ সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

অটল পেনশন যোজনা কি অনলাইনে আবেদন করা যায়?

না, APY অনলাইন আবেদন করা যায় না। আবেদনকারীকে তাঁর নিজ ব্যাঙ্কের শাখায় গিয়ে ফর্ম পূরণ করতে হবে।

মাসিক অবদানের পরিমাণ কি পরিবর্তন করা যেতে পারে?

হ্যাঁ, আবেদনকারীরা তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী বছরে একবার, এপ্রিল মাসে মাসিক অবদানের পরিমাণ বাড়াতে বা কমাতে পারেন।

অটল পেনশন যোজনায় কি কর সুবিধা আছে?

হ্যাঁ, অটল পেনশন যোজনায় আয়কর ধারা 80CCD (1) এবং 80CCD (1B) এর অধীনে কর ছাড়ের সুবিধা রয়েছে। এছাড়া পরিপক্কতার পরিমাণও কর মুক্ত রাখা হয়েছে।

সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ছাড়া কি APY অ্যাকাউন্ট খোলা যায়?

না, অটল পেনশন যোজনার জন্য সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা পোস্ট অফিস সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক৷

কোন নাবালক কি APY অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে?

না। কোন নাবালক APY অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে না। APY অ্যাকাউন্ট খোলার ন্যূনতম বয়স হোল ১৮ বছর।

আমি কি একাধিক APY অ্যাকাউন্ট খুলতে পারি?

একজন গ্রাহক শুধুমাত্র একটি APY অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন।

APY অ্যাকাউন্টে কীভাবে প্রিমিয়াম দেওয়া যায়?

APY গ্রাহক তার সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা পোস্ট অফিস সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে অটো ডেবিটের মাধ্যমে মাসিক/ত্রৈমাসিক/অর্ধবার্ষিক প্রিমিয়াম রাখতে পারবেন।

Leave a Comment