ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ টাকা কবে ঢুকবে, কাদের জন্য, ফর্ম, স্ট্যাটাস চেক

Updated on April 30th, 2024 ||

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ হোল পশ্চিমবঙ্গ সরকার দ্বারা প্রদত্ত একটি বৃত্তি, যেটি সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় উৎসাহ যোগানোর উদ্দেশ্যে দেওয়া হয়ে থাকে। সমাজের আর্থিকভাবে দুর্বল বহু শিক্ষার্থীরাই এই ধরণের স্কলারশিপের আর্থিক সহায়তার ওপর যথেষ্ট নির্ভর করে থাকেন। তাই এই নিবন্ধটি তাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এখানে ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ কি, কাদের জন্য, টাকা কবে ঢুকবে, কত টাকা, ফর্ম, স্ট্যাটাস চেক, শেষ তারিখ প্রভৃতি সম্বন্ধীয় যথাযত তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে।

Table of Contents

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ কি ও কাদের জন্য

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপটি ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল মাইনোরিটিজ ডেভেলপমেন্ট এন্ড ফিন্যান্স কর্পোরেশন’-এর অধীনে ২০১৯-২০ আর্থিক বছর থেকে প্রথম চালু করা হয়েছিল। বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে কলেজ সর্বত্রই বিদ্যা অর্জনের ক্ষেত্র ক্রমশ ব্যয় সাপেক্ষ হয়ে উঠেছে এবং ফলস্বরূপ উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর সংখ্যা কম হওয়া যার একটি অন্যতম কারন। 

তাই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের আর্থিক অসচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীরা যাতে এই শিক্ষার লড়াইতে পিছিয়ে না পড়ে, সেইদিকে নজর রেখেই পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফ থেকে এই স্কলারশিপের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অধীনে ক্লাস ১ থেকে পিএইচডি স্তর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়ে থাকে, অর্থাৎ বলাই যায় যে এই স্কলারশিপটি হোল শিক্ষার্থীদের সমস্ত শিক্ষা জীবনেরই সহায়ক।

তবে উল্লেখ্য যে, শুধুমাত্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীরাই এই ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের আবেদন করতে পারবে, অর্থাৎ এই বৃত্তিটি হল মুসলিম, খ্রিস্টান, শিখ, বৌদ্ধ, পার্সি এবং জৈন শিক্ষার্থীদের জন্য।

aikyashree scholarship bengali

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২৩-২৪ শেষ তারিখ

  • ২০২৩-২৪ বছরের পোস্ট-ম্যাট্রিক, MCM, SVMCM ও TSP বৃত্তির নতুন এবং রিনিউয়ালের জন্য আবেদন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১.০৫.২০২৪ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।
  • প্রি-ম্যাট্রিক স্কিমের জন্য যে সমস্ত আবেদনকারীদের স্ট্যাটাস ‘Invalid Bank Account’ হিসাবে দেখানো হচ্ছে তাদের ২০২৩-২৪ সালের জন্য আবার নতুন আবেদন করতে বলা হয়েছে।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ বিবরণ

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের সংক্ষিপ্ত বিবরণ নিচে তালিকাভুক্ত করা হলঃ

প্রকল্পের নামঐক্যশ্রী
প্রকল্প শুরুর সময়২০১৯-২০ আর্থিক বছর
প্রকল্পের ধরণপশ্চিমবঙ্গ সরকার স্কিম
দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগওয়েস্ট বেঙ্গল মাইনোরিটিজ ডেভেলপমেন্ট এন্ড ফিন্যান্স কর্পোরেশন
সুবিধাভোগীরাজ্যের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীগণ
প্রয়োজনীয় প্রাপ্ত নম্বরকমপক্ষে ৫০%
বার্ষিক পারিবারিক আয়₹২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত
স্কলারশিপের পরিমাণসর্বোচ্চ ₹৩৩,০০০/- টাকা
উদ্দেশ্যশিক্ষা ক্ষেত্রে উৎসাহ দিতে আর্থিক সহায়তা প্রদান
সরকারী ওয়েবসাইটwbmdfcscholarship.in

রূপশ্রী প্রকল্প

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২৩-২৪

ঐক্যশ্রী প্রকল্পের অধীনে পাঁচ ধরনের স্কলারশিপ দেওয়া হয় যথাক্রমে, প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ, পোস্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ, মেরিট-কাম-মেন্স স্কলারশিপ, আন্ডার টেলেন্ট সাপোর্ট প্রোগ্রাম এবং সংখ্যালঘুদের জন্য স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মেন্স স্কলারশিপ। নিচে সেগুলি আলোচনা করা হলঃ

প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ

এই স্কলারশিপের অধীনে প্রথম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনার জন্য বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে।

পোস্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ

এই স্কলারশিপের অধীনে একাদশ শ্রেণি থেকে পিএইচডি পর্যন্ত পড়াশোনার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া হয়।

প্রি-ম্যাট্রিক ও পোস্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপের যোগ্যতাঃ

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
  • বার্ষিক পারিবারিক আয় ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।
  • আবেদনকারীকে শিক্ষা বোর্ড/ কাউন্সিল/ রাজ্য/ কেন্দ্রীয় সরকার স্বীকৃত স্কুল/ প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত হতে হবে।
  • পূর্ববর্তী চূড়ান্ত পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বর বা সমমানের গ্রেড অর্জন করতে হবে।
  • পশ্চিমবঙ্গের বাইরের প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা প্রাক-ম্যাট্রিক বা পোস্ট-ম্যাট্রিক বৃত্তির জন্য যোগ্য হবে না।

মেরিট-কাম-মেন্স স্কলারশিপ

এই স্কলারশিপটি পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত এবং পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অধীনে যে কোনও বোর্ড বা বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানের স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরে পেশাদার বা প্রযুক্তিগত কোর্স করার শিক্ষার্থীদের প্রদান করা হয়।

মেরিট-কাম-মেন্স স্কলারশিপের যোগ্যতাঃ

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই একটি প্রযুক্তিগত বা প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তি হতে হবে।
  • শেষ পরীক্ষায় (উচ্চ মাধ্যমিক বা স্নাতক) কমপক্ষে ৫০% নম্বর পেতে হবে।
  • বার্ষিক পারিবারিক আয় ২.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের বাইরে অবস্থিত ‘পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও অর্থ নিগম’ দ্বারা বিজ্ঞপ্তি দেওয়া তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলিতে পড়াশুনা করছেন, তারাও আবেদনের জন্য যোগ্য হবেন৷

আন্ডার ট্যালেন্ট সাপোর্ট প্রোগ্রাম

এই বৃত্তিটি হোল তাদের জন্য যারা ‘পোস্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ’ এর জন্য যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি অর্থাৎ তাদের শেষ ফাইনাল পরীক্ষায় ৫০% এর কম নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে এবং একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হয়েছে বা পিএইচডি পর্যন্ত পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে। (পেশাগত এবং প্রযুক্তিগত কোর্স ব্যতীত)।

আন্ডার ট্যালেন্ট সাপোর্ট প্রোগ্রামের যোগ্যতাঃ

  • বার্ষিক পারিবারিক আয় ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।
  • শিক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ হওয়ার শেষ পরীক্ষায় ৫০% এর কম নম্বর থাকতে হবে।

সংখ্যালঘুদের জন্য স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মেন্স স্কলারশিপ

এই স্কলারশিপের অধীনে একাদশ শ্রেণী থেকে স্নাতকোত্তর স্তর পর্যন্ত এবং রেগুলার কোর্সে ডিপ্লোমা ইন পলিটেকনিক, ডিপ্লোমা ইন ফার্মেসি, বিএড, ডিএলইডি ইত্যাদি পড়াশোনার ক্ষেত্রে মেধাবী সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া হয়।

এক্ষেত্রে অনলাইন আবেদনের কাজটি প্রতি বছর পশ্চিমবঙ্গ উচ্চশিক্ষা বিভাগের (WBHED) সাথে মিলে করা হয়ে থাকে। এই স্কলারশিপে বেনিফিটের পরিমাণ হোল সর্বাধিক ₹৬০,০০০/- টাকা পর্যন্ত।

স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মেন্স সংখ্যালঘুদের জন্য স্কলারশিপের যোগ্যতাঃ

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের আবাসিক হতে হবে এবং পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীকে চলতি বছরে BBSE/WBCHSE/WBBME/CBSE/ISC স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে বা পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত বিশ্ববিদ্যালয় পাস আউট হতে হবে।
  • বার্ষিক পারিবারিক আয় অবশ্যই ২.৫ লক্ষ টাকার মধ্যে হতে হবে (যে কোনও রাজ্য/কেন্দ্রীয় সরকারী আধিকারিক দ্বারা জারি করা শংসাপত্র থাকতে হবে)৷
  • এই স্কলারশিপের ক্ষেত্রে শেষ পরীক্ষায় ন্যূনতম উচ্চ মাধ্যমিক থেকে স্নাতক স্তরের জন্য ৬০% নম্বর, স্নাতকোত্তর স্তরের জন্য ৫৩% এবং স্নাতক স্তরে অনার্স বিষয় এবং ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে স্নাতক স্তরের জন্য ৫৫% নম্বর প্রয়োজন।

কন্যাশ্রী প্রকল্প

ঐক্যশ্রী কত টাকা

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২৪ কত টাকা পাওয়া যায় তা নিচের সারণীতে উল্লেখ করা হলঃ

হোস্টেলে যারা থাকেন তাদের ক্ষেত্রেঃ

বৃত্তির প্রকারভেদপড়ার শ্রেণীভর্তি ফি এবং টিউশন ফিরক্ষণাবেক্ষণ ভাতামোট 
মেরিট-কাম-মেন্সমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং, ম্যানেজমেন্ট, ল, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ইত্যাদি কোর্স₹২২,০০০/-₹১১,০০০/-₹৩৩,০০০/-
পোস্ট-ম্যাট্রিকএম.ফিল এবং পিএইচডি₹৩,৩০০/-₹১৩,২০০/-₹১৬,৫০০/-
একাদশ ও দ্বাদশ (এই স্তরের কারিগরি ও বৃত্তিমূলক কোর্স)₹১১,০০০/-₹৪,২০০/-₹১৫,২০০/-
একাদশ ও দ্বাদশ₹৭,৭০০/-₹৪,২০০/-₹১১,৯০০/-
স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর₹৩,৩০০/-₹৬,৩০০/-₹৯,৬০০/-
প্রাক ম্যাট্রিকষষ্ট থেকে দশম₹৪,৪০০/-₹৬,৬০০/-₹১১,০০০/-

ডে স্কলারদের ক্ষেত্রেঃ

বৃত্তির প্রকারভেদপড়ার শ্রেণীভর্তি ফি এবং টিউশন ফিরক্ষণাবেক্ষণ ভাতামোট 
মেরিট-কাম-মেন্সমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং, ম্যানেজমেন্ট, ল, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ইত্যাদি কোর্স₹২২,০০০/-₹৫,৫০০/-₹২৭,৫০০/-
পোস্ট-ম্যাট্রিকএকাদশ ও দ্বাদশ (এই স্তরের কারিগরি ও বৃত্তিমূলক কোর্স)₹১১,০০০/-₹২,৫০০/-₹১৩,৫০০/-
একাদশ ও দ্বাদশ₹৭,৭০০/-₹২,৫০০/-₹১০,২০০/-
এম.ফিল এবং পিএইচডি₹৩,৩০০/-₹৬,০০০/-₹৯,৩০০/-
স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর₹৩,৩০০/-₹৩,৩০০/-₹৬,৬০০/-
প্রাক ম্যাট্রিকষষ্ট থেকে দশম₹৪,৪০০/-₹১,১০০/-₹৫,৫০০/-
প্রথম থেকে পঞ্চম₹০/-₹১,১০০/-₹১,১০০/-

উল্লেখ্য যে- 

  • যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা সংশ্লিষ্ট ইনস্টিটিউটের হোস্টেলে থাকেন না কিন্তু পেয়িং গেস্ট হিসেবে বা ভাড়ায় থাকেন, তাদেরও হোস্টেলারদের মধ্যেই অন্তর্ভুক্ত করা হবে।
  • ভর্তি এবং টিউশন ফি বাস্তব সাপেক্ষে বিচার করে পরিবর্তিত হতে পারে।
  • একটি শিক্ষাবর্ষে সর্বাধিক ১০ মাসের রক্ষণাবেক্ষণ ভাতা প্রদান করা হবে।

যোগ্যশ্রী প্রকল্প

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ফর্ম

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের ফর্মের জন্য নিম্নলিখিত পদ্ধতিটি অনুসরণ করুনঃ

  • আপনাকে সংখ্যালঘুদের জন্য স্কলারশিপের অফিসিয়াল পোর্টাল wbmdfcscholarship.in -এ যেতে হবে।
  • হোম পেজেই ব্যানারের জায়গায় আপনি ‘STUDENT’S AREA’ লিঙ্ক দেখতে পাবেন, সেখানে ক্লিক করতে হবে।
aikyashree student's area
  • আবেদনের জন্য প্রথমে আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে, তাই ক্লিক করুন ‘Fresh Registration

2023-2024’  লিঙ্কে।

  • আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি কোথায় অবস্থিত সেই জেলাটি উল্লেখ করতে হবে।
  • এরপর ৪ টি ধাপ আছে, যেটির মাধ্যমে আপনাকে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে লগইন করতে হবে। ধাপগুলি হোল ‘STUDENT INFORMATION’, ‘SCHEME ELIGIBILITY’, ‘REGISTRATION SUCESSFULL’ এবং ‘STUDENT’S LOGIN’।
aikyashree scholarship student registration
  • ‘STUDENT INFORMATION’ ধাপে শিক্ষার্থীর নাম, পিতা-মাতার নাম, মোবাইল নম্বর, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নং, ব্যাংক আইএফএস কোড ইত্যাদি পূরণ করে সাবমিট করতে হবে।
  • এরপর ‘SCHEME ELIGIBILITY’ ধাপ আসবে যেখানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি কোন ব্লক বা মিউনিসিপ্যালিটিতে অবস্থিত, বর্তমান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম, শ্রেণী বা কোর্সের নাম, শেষ উত্তীর্ণ হওয়া পরীক্ষার নাম, বোর্ডের নাম, পরীক্ষার বছর, পরীক্ষার শতকরা নম্বর, পরিবারের বার্ষিক আয় ইত্যাদি লিখে ও একটি পাসওয়ার্ড সেট করে সাবমিট করতে হবে।
  • সাবমিট করলেই আপনার রেজিস্ট্রেশনটি সম্পন্ন হবে এবং আপনি একটি রেজিস্ট্রেশন আইডি দেখতে পাবেন, যেটি অবশ্যই যত্ন করে রাখতে হবে।
  • এরপর ‘LOGIN’ -এ ক্লিক করে আপনার রেজিস্ট্রেশন আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে।
  • লগইন করার পর আপনি স্টুডেন্ট ড্যাশবোর্ডে পৌছাবেন, সেখানে পুনরায় কিছু তথ্য দিতে হবে যেমন স্থায়ী ঠিকানা, শিক্ষার্থীর আধার নম্বর ইত্যাদি এবং শেষ ধাপে ‘Varify & Lock Application’ -এ ক্লিক করলে আপনার আবেদনটি সম্পন্ন হবে এবং এরপর পুনরায় আর আবেদনপত্রটি কিন্তু সংশোধন করা যাবে না।
  • আপনি ‘Print Application’ এর মাধ্যমে আবেদনপত্রটি প্রিন্ট করে রাখতে পারেন এবং প্রয়োজনে আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তা জমা করতে হতে পারে।

ঐক্যশ্রী স্ট্যাটাস চেক

আপনি নিম্নলিখিত উপায় ঐক্যশ্রী এপ্লিকেশন স্ট্যাটাসটি চেক করতে পারবেনঃ

  • এপ্লিকেশন স্ট্যাটাসটি চেক করার জন্য আপনাকে অফিসিয়াল পোর্টাল wbmdfcscholarship.in -এ যেতে হবে।
  • ওপরের মেনু থেকে ‘Track Your Application’ এ ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জেলাটি সিলেক্ট করতে হবে।
  • আপনি ট্র্যাক এপ্লিকেশন পেজে পৌছানোর পর আপনাকে রেজিস্ট্রেশন বছর, জেলার নাম, জন্ম তারিখ, এপ্লিকেশন আইডি বা মোবাইল নম্বর যেটি দিয়ে আপনি সার্চ করতে চান তা উল্লেখ করতে হবে এবং ক্যাপচা পূরণ করে সাবমিটে ক্লিক করতে হবে। 
aikyashree track application
  • এরপর আপনি সমস্ত এপ্লিকেশন স্ট্যাটাসটি দেখতে পাবেন। এখানে যেগুলি বেশী গুরুত্বপূর্ণ যেমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং স্টেট ভেরিফাই করেছে কিনা, ব্যাঙ্ক ভ্যালিডেশন অ্যাপ্রুভ্‌ড হয়েছে কিনা এবং ডিসবার্সমেন্ট সাকসেস দেখাচ্ছে কি না, সেক্ষেত্রে পেন্ডিং দেখালে কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ রিনিউয়াল

নিম্নলিখিত ধাপগুলি অনুসরণ করে আপনি ঐক্যশ্রী স্কলারশিপটি রিনিউয়াল করতে পারবেনঃ

  • আপনাকে অফিসিয়াল পোর্টাল wbmdfcscholarship.in -এ যেতে হবে।
  • হোম পেজের ব্যানারের ওপর ‘STUDENT’S AREA’ লিঙ্কটি দেখতে পাবেন, সেখানে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর ‘Student Panel’-এ পৌছাবেন যেখানে আপনাকে ‘Renew Your Application‘ লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে।
  • ‘STUDENT’S RENEWAL LOGIN’ পেজে আসার পর আপনাকে ‘Application ID’, জন্ম তারিখ ও ক্যাপচা পূরণ করে লগইন করতে হবে। লগইন করার জন্য রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে ওটিপি ভ্যারিফিকেশন হবে।
aikyashree student's renewal login
  • লগইন করার পর আপনাকে ‘Renew Application’ বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • রিনিউ করার ক্ষেত্রে পুরনো কোন তথ্যই পরিবর্তন করা যাবে না, শুধুমাত্র কিছু নতুন তথ্য প্রদান করতে হবে যেমন বার্ষিক বা সেমিস্টার পরীক্ষায় কত শতাংশ নম্বর এসেছে ও তার সাথে মার্কশীটটি এবং ব্যাঙ্ক পাসবইয়ের প্রথম পাতার ছবি আপলোড করতে হবে। তারপর ‘Submit and Next’ এ ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর আপনার রিনিউ এপ্লিকেশনটির প্রিভিউ দেখতে পাবেন এবং নিচে কিছু গুরুত্বপূর্ণ চেক বক্সে টিক করতে হবে যেমন আপনি অন্য কোন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করেছেন কিনা, আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য সঠিক কিনা ইত্যাদি দিয়ে ‘Submit and Lock Renewa Application’ এ ক্লিক করলে আপনার ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ রিনিউয়ালটি সম্পন্ন হবে।

ঐক্যশ্রী সম্পর্কিত প্রশ্ন (FAQ)

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ কাদের জন্য?

এই স্কলারশিপ শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন এবং পার্সির মতো সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের জন্য। এই বৃত্তির জন্য প্রথম শ্রেণী থেকে পিএইচডি স্তরে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।

ঐক্যশ্রী প্রকল্পে কত টাকা পাওয়া যায়?

ঐক্যশ্রী প্রকল্পে সর্বনিম্ন ₹১,১০০/- টাকা থেকে সর্বোচ্চ ₹৩৩,০০০/- টাকা পর্যন্ত স্কলারশিপ পাওয়া যায়।

ঐক্যশ্রী ২০২৩-২৪ শেষ তারিখ কবে?

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপ ২০২৩-২৪ এর আবেদন ১লা সেপ্টেম্বর ২০২৩ থেকে শুরু হয়েছে এবং আবেদন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১.০৫.২০২৪ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

ঐক্যশ্রীর জন্য  কীভাবে অনলাইনে আবেদন করা যায়?

শিক্ষার্থীকে ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের অফিসিয়াল পোর্টাল wbmdfcscholarship.in-এ যেতে হবে ও প্রথমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে এবং তারপর লগইন করে আবেদনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে হবে।

ঐক্যশ্রীর জন্য শিক্ষার্থীরা কি বছরের যে কোন সময় ভর্তির আবেদন করতে পারবে?

না, ঐক্যশ্রীর অফিসিয়াল পোর্টালে উল্লিখিত নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই শিক্ষার্থীদের আবেদন করতে হবে।

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপের জন্য কত নম্বর থাকা প্রয়োজন?

ঐক্যশ্রী স্কলারশিপে প্রি-ম্যাট্রিক, পোস্ট-ম্যাট্রিক এবং মেরিট-কাম-মেন্স এর ক্ষেত্রে শেষ পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বর থাকতে হবে।

Leave a Comment